অর্থনীতিতে দক্ষিণ-এশিয়ার অন্যতম শক্তিশালী দেশ বাংলাদেশ। ৫৬ হাজার বর্গমাইলের এই দেশ আয়তনে খুব বড় না হলেও এর জিডিপি (গ্রস ডমেস্টিক প্রোডাক্ট) ৪৬০.৮ বিলিয়ন ইউএস ডলার, যা বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় অনেক বেশি। 

১৮ কোটি জনসংখ্যার এই দেশে অপার সম্ভাবনার খাত রিটেইল সেক্টর। মোট জনসংখ্যার মধ্যে মোট ৫০ লাখেরও বেশি রিটেইল ব্যবসায়ের সাথে জড়িত। এবং প্রতিবছর ৫০ হাজারেরও বেশি এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ে যুক্ত হচ্ছেন। এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা মোট জিডিপির ৩০% এ সরাসরি যুক্ত থাকে। 

এত এত সম্ভাবনা থাকার পরেও ক্ষুদ্র ব্যবসায় সেক্টর পিছিয়ে আছে শুধুমাত্র সঠিক গাইডলাইন ও ডিজিটালাইজেশনের সঠিক ব্যবহারের অভাবে। 

 

প্রিয়শপ কী!

দেশের সকল রিটেইলারকে একটি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে সেবা প্রদান ও তাদের জীবন ব্যবস্থা উন্নয়নে সাহায্য করার প্রত্যয়ে তৈরী করা বি২বি মার্কেটপ্লেস হচ্ছে প্রিয়শপ। 

প্রিয়শপ কীভাবে কাজ করে!

আমাদের দেশের অধিকাংশ রিটেইলারই গতানুগতিক রিটেইল ব্যবসায়ের সাথে অভ্যস্থ। পণ্য সংগ্রহ থেকে শুরু করে পণ্য দোকান পর্যন্ত নিয়ে আসা, ক্রেতার হিসাব রাখা সবকিছু সে গতানুগতিক ধারায় করে আসছে। প্রথমত, বিভিন্ন পণ্য সংগ্রহের জন্য ভিন্ন ভিন্ন সাপ্লাইয়ারের কাছে যেতে হয়, যা বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। এছাড়া বেশির ভাগ দোকানিই একা দোকান সামলায়; সেক্ষেত্রে দোকান বন্ধ রেখে সাপ্লাইয়ারের কাছে যেতে হয়। এতে করে ব্যবসায়ের ক্ষতি হয়। এছাড়া যাওয়া-আসাসহ পণ্য পরিবহনে বেশ বড় অংকের টাকা খরচ হয়। 

প্রিয়শপ এই সমস্যা সমাধানে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় সকল ব্র্যান্ডকে একই প্ল্যাটফর্মে নিয়ে এসেছে। এতে করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা প্রিয়শপ এ্যাপের মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় সকল পণ্য যখন খুশি তখন অর্ডার দিতে পারবে। অর্ডার পাওয়ার পরই প্রিয়শপ লজিস্টিক টিম তাদের সেই সকল পণ্য রিটেইলারদের সাপ্লাই চেইন সংক্রান্ত সকল সমস্যা পাশ কাটিয়ে তাদের দোকানে পৌঁছে দেয়। এতে করে রিটেইলাররা তাদের ব্যবসায়ে বেশি সময় দিতে পারছে। এবং তাদের ব্যবসায় আগের তুলনায় অন্তত ২০% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে যা তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে বেশ ভূমিকা রেখেছে। 

আমাদের সুবিধাসমূহ: 

প্রিয়শপ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে একজন রিটেইলার তার ব্যবসায়ের সকল সমস্যার সমাধান পেয়ে থাকে। 

১. এক এ্যাপ, হাজারো ব্র্যান্ড: প্রিয়শপ এ্যাপের মাধ্যমে একজন রিটেইলার যখন ইচ্ছে তখন হাজারেরও অধিক পণ্য থেকে তার পছন্দের সকল ব্র্যান্ডের পণ্য বাছাই করতে পারে। 

২. লজিস্টিক: বর্তমানে প্রিয়শপ তার নিজস্ব লজিস্টিক-এর মাধ্যমে তার রেজিস্টার্ড এরিয়ায় সেবা দিয়ে আসছে। 

৩. বাকিতে পণ্য ক্রয়: প্রিয়শপ এ্যাপের মাধ্যমে যেকোন রিটেইলার শর্ত সাপেক্ষে বাকিতে পণ্য ক্রয় করতে পারে। 

 

বর্তমানে প্রিয়শপ ৪০ এরও অধিক জোনের রিটেইলারদের নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে আসছে এবং খুব শীঘ্রই সারা দেশজুড়ে সকল রিটেইলারকে সেবা দেয়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে এগিয়ে চলছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *